সোমবার, ২০ অগাস্ট ২০১৮, ১১:১৭ অপরাহ্ন

নোটিশ :
বাউফল নিউজ ওয়েবসাইটে আপনাদের স্বাগতম
সংসদ নির্বাচন পরিচালনায় প্রস্তুত ডিসি’রা

সংসদ নির্বাচন পরিচালনায় প্রস্তুত ডিসি’রা

এ বছরের ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত হবে ১১তম জাতীয় সংসদ নির্বাচন। সরকারের একাধিক জ্যেষ্ঠ মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের শীর্ষস্থানীয় নেতা বিভিন্ন সময় গণমাধ্যমে দেওয়া বক্তব্যে এ ধরনের বার্তা দিয়েছেন। সর্বশেষ বৃহস্পতিবার (২৬ জুলাই) এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহম্মদ নাসিম, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। তারা সবাই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বর্তমান ডিসিদের সর্বোচ্চ দায়িত্ব পালনের পরামর্শ দিয়েছেন।
বর্তমানে দায়িত্ব পালনরত অধিকাংশ জেলা প্রশাসকই (ডিসি) এ নির্বাচনে মুখ্য ভূমিকা পালন করবেন। সরকারের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে, সরকারের পক্ষ থেকে তাদের এ বিষয়ে সবুজ সংকেতও দেওয়া হয়েছে। ডিসি সম্মেলনে আসা কয়েকজন জেলা প্রশাসকের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, রাষ্ট্রের এ গুরু-দায়িত্ব পালনে তারা পুরোপুরি প্রস্তত।
জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, দায়িত্ব পালনের তিন বছর মেয়াদ পূর্ণ হওয়াসহ অন্য কিছু কারণে বর্তমানে দেশের ৬৪ জেলায় কর্মরত ডিসিদের মধ্যে সর্বোচ্চ ১৫ থেকে ২০ জন পরিবর্তন হতে পারেন আগামী দুই থেকে আড়াই মাসের মধ্যে। এসব জেলায় যারা নিয়োগ পাবেন তাদের তালিকাও প্রস্তুত। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে ইতোমধ্যে তাদের ফিটলিস্টও চূড়ান্ত করে রাখা হয়েছে। জানা গেছে, বিসিএস ২১তম ব্যাচের কর্মকর্তারাই নিয়োগ পাচ্ছেন বিভিন্ন জেলার ডিসি পদে। বর্তমানে যারা ডিসি পদে নিযুক্ত রয়েছেন তাদের অধিকাংশই বিসিএস ২০তম ব্যাচের কর্মকর্তা।
জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, সংবিধান অনুযায়ী ১১তম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকে পুরো প্রশাসন পরিচালিত হবে নির্বাচন কমিশনের পরামর্শে। তফসিল ঘোষণার পর জেলা প্রশাসক (ডিসি) ও পুলিশ সুপার (এসপি) পদে অল্প কিছু পরিবর্তন আসতে পারে। আর পরিবর্তন হলেও তা হবে এদিক-সেদিক। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের একজন উপসচিব বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, ‘প্রশাসনের পছন্দমাফিক কর্মকর্তা না হলে সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বাস্তবায়নে সমস্যা হয়। তাই সব সরকারই চায় তাদের পছন্দের কর্মকর্তারা দায়িত্বে থাকুক। আমি এটিতে দোষের কিছু দেখি না। আস্থাভাজন বা বিশ্বাসভাজন বলে কথা।’
মঙ্গলবার (২৪ জুলাই) ঢাকায় শুরু হওয়া তিনদিনের ডিসি সম্মেলনে যোগ দিতে আসা সিলেট বিভাগের একজন জেলা প্রশাসক নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছেন, ‘আমরা মানসিকভাবে প্রস্তুত। আগামী সংসদ নির্বাচন অর্থবহ করতে সেই সময়কার (নির্বাচনকালীন) আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাসহ সব ধরনের প্রস্তুতি শুরু করেছি। তবে অনেক আগে থেকেই সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক প্রকল্প বাস্তবায়নে গুরুত্ব দিচ্ছি। সরকারের সাফল্য জনসাধারণকে জানানোর উদ্যোগ নিয়েছি। সরকারের পক্ষ থেকেও আমাদের সেভাবেই নির্দেশনা দেওয়া হচ্ছে।’
এদিকে বরিশাল বিভাগের একজন ডিসি নাম প্রকাশ না করার শর্তে বাংলা ট্রিবিউনকে জানিয়েছেন, ‘ইতোমধ্যেই জেলার আওতাভুক্ত সবক’টি নির্বাচনি এলাকা পরিদর্শন করে পুরো এলাকা সম্পর্কে ধারণা নিয়েছি। কোথায় কী ধরনের সমস্যা হতে পারে তা শনাক্ত করেছি। এখন সমাধানের চেষ্টা করছি। কোথাও আটকে গেলে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের পরামর্শ নিচ্ছি।’
এদিকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল ডিসি সম্মেলনের শেষ দিন বৃহস্পতিবার (২৬ জুলাই) ডিসিদের উদ্দেশে বলেছেন, ‘জাতিকে একটি সুষ্ঠু নির্বাচন উপহার দিতে জেলার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভালো রাখতে হবে। এজন্য যা যা প্রয়োজন তা যেন নিশ্চিত করা হয়।’ ডিসিদের মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়ে তিনি আরও বলেছেন, নির্বাচনের স্বার্থেই মাদক মামলায় অভিযুক্ত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে করা মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য ভ্রাম্যমাণ আদালতের সংখ্যা বাড়াতে হবে। তিনি ডিসি ও এসপিদের তাদের কাজের মধ্যে সমন্বয় রেখে সরকারের নির্দেশ পালনের পরামর্শ দেন।
এদিকে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ডিসিদের যে নির্দেশ দিয়েছেন তাই সরকারের নির্দেশ। আমাদের পৃথক কোনও নির্দেশ নাই। সরকারের দেওয়া নির্দেশ বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে কেউ কোনও সমস্যা অনুভব করলে তা সরাসরি ফোন করে জানানোর নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।’ অপরদিকে ডিসিদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘দায়িত্ব পালনে কোনও চাপের কাছে মাথানত করবেন না। দায়িত্ব পালন করুন সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে। সরকারের সাফল্য প্রচার করুন। সরকারের প্রকল্প বাস্তবায়ন করুন। প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকারপ্রাপ্ত প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নে মনোযোগী হোন। আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভালো রাখতে হবে যেকোনো মূল্যে।’
জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) তিনি বলেছেন, ‘এমন কোনও কাজ আপনারা করবেন না, যাতে সরকার বিব্রতবোধ করে। তিনি সরকারের স্বপ্নগুলো (চলমান প্রকল্প) বাস্তবায়ন করার নির্দেশ দিয়েছেন। সরকারের এসব স্বপ্ন হচ্ছে- পদ্মা সেতু, মেট্রোরেল, কর্ণফুলী ট্যানেল। এসব প্রকল্প বাস্তবায়ন ত্বরান্বিত করার ওপর জোর দেন তিনি।
সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘অক্টোবরে নির্বাচনি তফসিল ঘোষণা করা হবে। মাত্র পৌনে তিন মাস সময় বাকি আছে। সরকারের পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসকদের যে বার্তা দেওয়ার তা সরকারপ্রধান দিয়েছেন। এক্ষেত্রে ওনার মেসেজই আমাদের মেসেজ।’
এদিকে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী এবং ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, সরকারের নেওয়া প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নের জন্য ডিসিদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, ‘একটি রাজনৈতিক সরকারের মাঠ পর্যায়ের প্রতিনিধি হচ্ছেন জেলা প্রশাসক (ডিসি)। সরকারের সব সিদ্ধান্ত তাদেরই বাস্তবায়ন করতে হয়। সেদিক বিবেচনা করে সরকারের সিদ্ধান্ত ও প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নে ডিসিদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’
এক প্রশ্নের জবাবে নাসিম বলেন, ‘আগামী ডিসেম্বরে দেশে নির্বাচন হবে ইনশাআল্লাহ। এর আগে সরকারের দেওয়া নির্দেশনাগুলো বাস্তবায়নের জন্য ডিসিদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কারণ এই ডিসিরাই আগামী নির্বাচনে জেলায় দায়িত্ব পালন করবেন।’

নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2018 Bauphalnews.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com