সোমবার, ২০ অগাস্ট ২০১৮, ১১:২২ অপরাহ্ন

নোটিশ :
বাউফল নিউজ ওয়েবসাইটে আপনাদের স্বাগতম

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণার পরপরই দেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ইউনিট ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ও উত্তরের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করা হয়েছে।

৩১ জুলাই, মঙ্গলবার রাতে কেন্দ্রীয় কমিটিসহ এই দুই ইউনিটের কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়।

ছাত্রলীগের ‘সাংগঠনিক প্রধান’ ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এই কমিটি ঘোষণা করেন।

কেন্দ্রীয় ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিটের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকের চারজনই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষার্থী। বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে চলছে নানা আলোচনা।

আবার অনেকেই তাদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগেরই ছাত্র ছিলেন।

এর আগে কমিটির র্শীষ চারজনের তিনজনই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জিয়া হলের ছাত্র ছিলেন। এদের মধ্যে ছিলেন-কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ এবং সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন। তা ছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন প্রিন্সও ওই হলের ছাত্র ছিলেন।

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের ৩৬তম ব্যাচের রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন এবং সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন গোলাম রাব্বানী, তিনি আইন বিভাগের ৩৫তম ব্যাচের শিক্ষার্থী।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিটের সভাপতি হিসেবে আইন বিভাগের ৩৭তম ব্যাচের সঞ্জিত চন্দ্র দাস এবং সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন আইন বিভাগের ৩৯তম ব্যাচের সাদ্দাম হোসাইন।

ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আফরিন নুসরাত ফেসবুকে লিখেছেন, ‌‘অবশেষে বহুল প্রতিক্ষীত কমিটি! অনেক অনেক শুভ কামনা শোভন এবং রাব্বানী! ছোটভাই সাদ্দাম এবং সনজিৎকে… এত চমৎকার কমিটি হয়েছে যা ভাষায় প্রকাশ করা যাবে না; প্রগতিশীল আন্দোলনে সোচ্চার সকল সহযোদ্ধাদের জানাই অফুরান শুভেচ্ছা।’

দেব দুলাল গুহ নামে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক এক শিক্ষার্থী ফেসবুকে লিখেছেন, ‘বঙ্গবন্ধুর নিজ হাতে গড়া সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নতুন কমিটির কেন্দ্রীয় এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কমিটির মূল চারটি পদের চারটিই বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি বিজড়িত আইন অনুষদের ছাত্রদের দখলে! এ এক নতুন চমক, বিরল কম্বিনেশন! অভিনন্দন ও শুভকামনা।’

আইন বিভাগের ছাত্র সৌরভ আহসান ফেসবুকে লিখেছেন, ‘সবাই আইন বিভাগের। জ্বী, এটা বঙ্গবন্ধুর আইন বিভাগ! সবাই আমার বড়ভাই।’

প্রসঙ্গত, সাইফুর রহমান সোহাগ এবং এস এম জাকির হোসাইন নেতৃত্বাধীন কমিটির মেয়াদ পেরিয়ে এক বছর পার হওয়ার পর গত ১১ ও ১২ মে ছাত্রলীগের ২৯তম জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। দ্বিতীয় দিনে কাউন্সিলের পর কমিটি ঘোষণার রেওয়াজ থাকলেও এবার নেতৃত্ব বাছাইয়ের দায়িত্ব নেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজেই।

পরবর্তী সময়ে শেখ হাসিনা ছাত্রলীগের পদপ্রত্যাশী ৩২৩ জন সম্পর্কে বিভিন্ন মাধ্যমে খোঁজ-খবর নেওয়ার পর গণভবনে তাদের ডেকে সরাসরি কথা বলেন। তারপরই কমিটির ঘোষণা এলো।

নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2018 Bauphalnews.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com