সোমবার, ২০ অগাস্ট ২০১৮, ১১:২২ অপরাহ্ন

নোটিশ :
বাউফল নিউজ ওয়েবসাইটে আপনাদের স্বাগতম
Asthma চিকিৎসায় কিছু ভ্রান্ত ধারনা।

Asthma চিকিৎসায় কিছু ভ্রান্ত ধারনা।

ডা: পঙ্কজ দাস
Asthma রোগীদের চিকিৎসায় অনেক সময় ইনহেলার বা গ্যাস ব্যবহার করতে দেওয়া হয়। কিন্ত রোগী প্রায়ই এটা ব্যবহার করেননা। তাদের ধারনা এটা জীবনের শেষ চিকিৎসা। তারা ভাবে এটা একবার টানলে আর কোনও ঔষধে কাজ করবেনা।

এটা সঠিক কথা নয়। ইনহেলার বা গ্যাস খুবই নিরাপদ ঔষধ। এটা ছোট শিশু থেকে শুরু করে বৃদ্ধদেরও দেওয়া যায়। সাধারনত শ্বাসকষ্টে যে সকল মুখে খাবার ঔষধ ব্যবহার করা হয় তাতে মুল ঔষধের পরিমাণ বেশী থাকে এবং ইহার কারনে বিভিন্ন পাশ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে। কিন্ত ইনহেলার বা গ্যাসে ঔষধের পরিমান খুব কম থাকে এবং এটা রক্তে না মিশে সরাসরি ফুসফুসের ভিতরে শ্বাসনালীতে কাজ করে। তাই এর কোনও ক্ষতিকারক দিক নাই।

কোনও কোনও শিশুকে শ্বাসকষ্টে নেবুলাইজেশন করতে বললে দিতে চাননা। ঠিক একই কারনে তারা বলে এই ধোঁয়া দিলে বাচ্চার ক্ষতি হবে। এটা আধুনিক বিজ্ঞান সম্মত উপায় এবং শরীরে কোনও ক্ষতিকর প্রভাব নাই।

প্রায়ই শ্বাসকষ্টর রোগীরা হোমিওপ্যাথিক বা আয়ুর্বেদিক পাউডার নিয়ে আসেন এবং বলেন বছরের পর বছর এটা খাচ্ছেন এবং ভাল আছেন। এর অধিকাংশই ফুটপাত থেকে কেনা। দীর্ঘমেয়াদী খাবার পরে শরীরে অন্যান্য সমস্যা যেমন: পেটে পানি আসা, নানা ধরনের চর্মরোগ, মোটা হয়ে যাওয়া, ঘুমে সমস্যা ইত্যাদি দেখা দেয়। এই পাউডার আসলে ষ্টেরয়েড এবং এটা দীর্ঘমেয়াদী সাধারণত খাওয়া যায়না। এতে শরীরে পানি জমে এবং দেহের ভিতরের ষ্টেরয়েড তৈরির প্রকৃয়া অকেজো করে দেয়।

তাই আসুন ডাঃ ইনহেলার বা গ্যাস প্রেশক্রাইব করলে তা ব্যবহার করি এবং শ্বাসকষ্টে অপচিকিৎসা থেকে দূরে থাকি।

নিউজটি শেয়ার করুন..

© All rights reserved © 2018 Bauphalnews.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com